গল্প অভাগী          পর্ব:৬
লেখা: রাজকন্যা ( তাবাসসুম)  ভালবাসার গল্প


সকালে আকাশ বারান্দার দরজাটা খুলে দিলো,, গিয়ে দেখে মেঘ গুটিসুটি  মেরে ফ্লোরে শুয়ে আছে, শীতে কুঁকরে শুয়ে আছে।। গতকালের লেহেংগা পড়ে আছে, ঠোঁটের কোনে রক্ত জমাট বেধে আছে,, একবারে ছোট বাচ্চাদের মতন করে শুয়ে আছে,


গল্প অভাগী । পর্ব৬ । ভালবাসার গল্প, ভালবাসার গল্প কথা, bangla love story, bd love story, রোমান্টিক ভালবাসার গল্প, রোমান্টিক গল্প, motivational speach
গল্প অভাগী  পর্ব:৬


golp আকাশ কিছুক্ষন তাকিয়ে রইল, কিছু মনে হওয়ায় মুখের এক্সপ্রেশান বদলে গেলো ,,, ভিতরে গিয়ে হঠাৎ  এক বালতি পানি এনে মেঘের উপর ঢেলে দেয় শীতের মাঝে হঠাৎ ঠান্ডা পানি পড়ায় ধরফরিয়ে উঠে যায়,,, উঠতেই কাশি শুরু হয়ে যায়,,, সারারাত ঠান্ডার মাঝে শুয়ে থেকে, এখন সকাল সকাল এই ঠান্ডা পানি, পুরোই নাজেহাল অবস্থা মেঘের,,, তাই রাগ করে বলে উঠলো,,, কি প্রবলেম কি আপনার?? সারারাত জ্বালিয়েও শান্তি হয় নি? ঠান্ডা পানি কেনো ঢাললেন??? সাহস তো আপনার কম না, আপনি আমার উপর চিল্লাছেন? তো কি হয়েছে? আপনি কি আমিরিকার প্রেসিডেন্ট নাকি যে আপনাকে তুলু তুলু করবো, ( সকাল সকাল মেজাজ টাই বিগরে  দিলো )  হোয়াট??? হোয়াট ডু ইউ মিন বাই তুলু তুলু? ইউ ডোন্ট নো তুলু তুলু??? হাউ ফানি!!! এই উনি শিক্ষিত ( ভেংচিয়ে) 

 bangla love story সাট আপ, স্টুপিড গার্ল,, আপনাকে এইখানে ঘুমানোর জন্য আনা হয় নি ওকে? নিচে গিয়ে সবার জন্য ব্রেকফাস্ট রেডি করেন এই না, এত টাকা?? তো কাজের লোক রাখার ক্ষমতা নেই,, হুম হে ডোন্ট টক টু বি রাবিশ,,, টাকা দিয়ে কিনেই তো এনেছি আপনাকে, কাজের জন্য,, বেহায়াদের মত তাকিয়ে আছেন কেনো ,, বলেই চলে গেলো মেঘ কিছুক্ষন চুপচাপ দাড়িয়ে রইল,, ঘড়ে ঢুকে গয়না গুলি খুলছিলো আর আনমনে ভাবছিলো,,, আল্লাহ কোন পাপের শাস্তি আমাকে দিচ্ছো??? কি পাপ করেছিলাম? কি ব্যাপার ( ভাবনায় ছেদ পড়লো মেঘলার)  এমন গয়না জীবনে দেখেন নি তাই তো?? মেঘ চমকে তাকালো গয়না কি বাপের বাড়িতে হাপিস করার ছক কসছেন?? আর করতেই পারেন, কারন আমার টাকা দেখেই তো বিয়ে করতে এসেছেন, এইসবের দিকেই তো নজর আপনার,, কি যা তা বলছেন এইসব?

   

 bd love story এখন যা তা?? চোরের মায়ের বড় গলা ( আকাশ ইচ্ছে করে অপমান করছে) , যেই ফেমেলি থেকে  এসেছেন দেখলামি তো,, ঠিক করে খেতে আর পড়তে পারতেন কিনা সন্দেহ আছে,,, আমার এইখানে তো এইজন্যই আছেন, যেনো আমার টাকায় আয়েশ করতে পারেন, ছি আপনি এত বাজে কথা কি করে বলছেন? ( কেদে)  চুপ করুন প্লিজ,,, আমি কম খেতে পারি, কম পড়তে পারি কিন্তু আমার বাবা, মা আমাকে নিজের ঘরের ক্ষতি করার শিক্ষা দেন নি,,  নিজের ঘড় মানে??? এইটা আপনার নিজের ঘড় না ওকে?? দয়া করে রেখেছি আমি আপনাকে।।। শুধু মায়ের মুখের দিকে তাকিয়ে, নইত আপনার মত মেয়ে আমার জুতু পরিষ্কারের জন্যও যোগ্য না,, মেঘের চোখ দিয়ে টুপ টুপ করে পানি পড়তে লাগলো,,, জীবনে কেউ এইভাবে অপমান করে নি একটা কথা বলে রাখি,, আপনি এই বাড়িতে থাকতে না চাইলে চলে যেতে পারেন তবে মাকে সামলিয়ে, আর থাকতে হলে বাহিরে কাউকে আমার আর আপনার বিয়ের কথা বলতে পারবেন না,,, আমার বউ হওয়ার যোগ্যতা আপনার নেই,, কারন আপনাকে আমি বউ মানি না,,, আপনি পরিচয় দিতে পারেন আপনি আমার রক্ষিতা,,,, মেঘ চমকে তাকিয়ে উঠলো,,


 ভালবাসার গল্প কথা আকাশ রুম থেকে বেরিয়ে গেলো, ফ্লোরে ধপ করে বসে পড়লো,,, তার কানে একটা কথাই বাজছে,, রক্ষিতাতাতাতা! অনেকক্ষন বসে থেকে ওয়াস রুমের দিকে পা বাড়ালো,, শরীর টা অসার হয়ে গেছে, কোন শক্তি পাচ্ছে না,, ওয়াস রুমে ঢুকে সাওয়ার অন করে চিল্লিয়ে কান্না শুরু করে দিল,,, বাবা দেখেছো আজ আজ আমি রক্ষিতা,, উনি আমাকে প্রস্টিটিউট এর দলে ফেলে দিলেন, তুমরা কেনো আমাকে ফেলে চলে গেলে বাবা ( কান্না করতে করতে),, আমাকেও তুমরা নিয়ে যাও বাবা,, এই পৃথীবিতে বড্ড একা আমি,, আমার কেউ নেই বাবা, কেউ নেই ( কান্না করতে করতে)  আকাশ,,, আপনি নিজেই এই বাড়ি ছেড়ে চলে যাবেন মিসেস মেঘ ( বির বির করে),,, প্রতি পদে পদে আপনাকে আমি ছোট করবো,, কজ আই হেইট গার্লস মেঘ সাওয়ারের নিচে বসে কাঁদছে,, আর বলছে,,, আ আ আ মি,, র ক্ষি তা!!! ছি ছি,, নিজের উপর আজ বড্ড ঘেন্না লাগছে আকাশ কি যেনো একটা ফাইল নিতে ঘড়ে আসে, ওয়াস রুম থেকে  পানি পড়ার  আওয়াজ আসায় বুঝলো, মেঘ ওয়াস রুমে,, গিয়েই দরজা ধাক্কানো শুরু করে,,, এই বের হন, আপনার সাহস হয় কি করে আমার ওয়াস রুম ইউজ  করার  বের হন বলছি ( চিল্লিয়ে) 


মেঘ চিৎকার শুনে তাড়াতাড়ি করে জামা পড়ে বের হয়, বের হতেই, ঠাসসসসসস মেঘ ছিটকে পড়ে গেলো, আকাশ ফিরে তাকালোও না,, মেঘ অনেক ব্যাথা পেয়েছে কিন্তু এই ব্যাথা কেউ দেখার নেই,,, আস্তে আস্তে রেডি হয়ে নিচে গেলো,, সবাই খাবার টেবিলে,,, আকাশের ভাবী, তার মেয়ে,,, আআকাশের মা, আকাশ, মেঘ,, মেঘকে জোড় করে তার শ্বাশুড়ি বসিয়ে  দিলো খাওয়ার জন্য,,,, মেঘের  গলা দিয়ে খাবার নামছে না,, আকাশ তো তাকে খাবার নিয়েই খোঁটা দিয়েছে,, এই খাবার ওর গলা   দিয়ে নামে কি করে?!!!! আসমা বেগম,,, আকাশ আমি চাই মেঘ পড়াশুনা কন্টিনিউ করুক তাই কাল থেকে ও ভার্সিটি যাবে,,, মেঘ অবাক হয়ে তাকিয়ে রইল, তবে বেশ খুশি হলো ,,, কিন্তু চিন্তা একটা আছে,, আসমা বেগম কথা শেষ করে আকাশের দিকে তাকালো ,, আকাশ মিন দিয়ে খাচ্ছে,  


রোমান্টিক ভালবাসার গল্প আকাশ কিছু বলেছি তুমাকে     আমি কি বলবো, তুমার যেটা ভালো মনে হয় করো,, মেঘ তুমার বউ, তুমার একটা মতামত আছে না? মা , এমন ভাবে বলছো মনে হচ্ছে আমার সখের বউ  !! বিয়েটা কি করে হয়েছে আই থিংক তুমি ভুলে  যাও নি, তাই ওর কোন ব্যাপারে  আমাকে জড়াবে না, আম ডান,, আসছি আকাশ, আকাশ শুন আর দাড়ালো না আকাশ মেঘ চুপ করে বসে আছে,, আসমা বেগম , মেঘের মাথায় হাত দিয়ে বললেন,, তুই চিন্তা করিস না, তুই কাল থেকে ভার্সিটি যাবি,, ভাবী,, আরে তুমি ভাবছো কেনো? আমার দেবরটা একটু কঠিন তবে মনটা বেশ নরম,, আমরা সবাই তুমার পাশে আছি মেঘ, তুমি নিজের কেরিয়ারটাই ফুকাস করো,, আর আকাশকে আস্তে আস্তে সামলে নিবে,,, মেঘ শুকনা হাসি দিলো,, আকাশের ফেমিলি টা কত ভালো আর আকাশ!

 

  motivational speach মেঘ হালাকা মুখে দিয়ে উপরে চলে গেলো বিছানায় বসে ভাবতে লাগলো,, কি করে ভার্সিটি ফি দিবে,,   কি করে সেমিস্টার ফি দিবে কারন আকাশের কোন টাকা ও নিবে না,, তারপর ভাবলো, ভার্সিটি গেলে সময় পাবে, বাহিরে বের হতে পারবে,, তখন একটা টিউসন যুগার করতে পারবে, আর আস্তে আস্তে কোন কোচিং এ ঢুকলে তো হয়েই গেলো,,, উপায়  টা বের করতে পেরে মেঘের বেশ হালকা লাগছে খুশি খুশি লাগছে,


চলবে,, 


গল্পঃ অভাগী, পর্ব:৫ | bangla love story | ভালবাসার গল্প | রোমান্টিক ভালবাসার গল্প । motivational speach | bd love story


গল্পঃ অভাগী, পর্ব :৪, bangla love story, রোমান্টিক গল্প, ভালবাসার গল্প, ভালবাসার গল্প কথা, রোমান্টিক ভালবাসার গল্প



Post a Comment

Previous Post Next Post