মেয়েদের নিয়ে কিছু বাস্তব সত্য কথা। Bd love story
শ্বশুর বাড়ির লোকের ব্যবহার কেমন হবে তা নির্ভর করে বাবার টাকার উপর।

মেয়েদের নিয়ে কিছু বাস্তব সত্য কথা। Bangla love story


বিয়ের পর একটা মেয়ে স্বাভাবিকভাবে চায় তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার সাথে ভালো ব্যবহার করুক। সেটা হতে পারেন স্বামী দেবর-ভাসুর জানোনা শশুর শাশুড়ি এবং তাদের আত্মীয়-স্বজন ও বটে। কিন্তু কখনো কখনো সেই ভালো ব্যাবহারটা একটি মেয়ে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে পায় না। এজন্য কারণ থাকে


তার মধ্যে অন্যতম কারণ হলো মেয়ের বাবার টাকা পয়সা ধন সম্পত্তি। খুব স্বাভাবিকভাবেই একটা মেয়ের যখন তার বাবার অনেক সম্প্রতি থাকে, অনেক টাকা-পয়সা থাকে তখন শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে মাথায় করে রাখে।

 কিন্তু বিপরীত দিকে যখন মেয়ের বাবার টাকা পয়সার কমতে থাকে বা কম থাকে তাদের চাহিদা পূরণ করতে পারে না তারা চাইলে দিতে পারেন না অথবা এমনিতেই তাদেরকে দেয় না। তখনই হয়ে যায় সমস্যা। তখন আর মেয়েটার কদর থাকে না।

 মেয়েটাকে আদর করে না, মেয়েটাকে তখন আর মাথায় ন বরং মাটিতে ফেলে দেয়। মেয়েটা হয়তো এটা আশা করেনি। কিন্তু কি হবে মেয়ের বাবা যে টাকা নেই টাকা। থাকলে অবশ্যই কদর পেত। কিন্তু যেহেতু মেয়ের বাবার টাকা পয়সা কম সেজন্য বিভিন্ন অধ্যায়ে লাঞ্ছনা-বঞ্চনা শুনতে পাচ্ছে। কথায় কাজে তাকে অত্যাচার করা হয়। অনেক ক্ষেত্রে আমি বলি না যে সবাই করে থাকি। কিন্তু এটা করে থাকে উঠতে-বসতে খোটা দেওয়া। কথা কথা নিয়ে রাগারাগি করা। কথা শোনানো।  সেটা পরিবারের লোকজন হতে পারে বাইরের লোকজনও হতে পারে। আবার আত্মীয়-স্বজন হতে পারে। টোটালি সেটা নির্ভর করে মেয়ের বাবার টাকাপয়সা ক্ষমতা এগুলোর উপর।

  মেয়ের বাবা যদি টাকাপয়সা ক্ষমতা থাকে তাহলে মেয়েকে উঠতে-বসতে প্রশংসা করা হবে। তাকে মুল্যবান করে নেওয়ার মতো হবে। তাকে দিয়ে তেমন একটা কাজ করানো হয় না। বিপরীত দিকে যখন টাকা-পয়সার থাকবেনা তখন তাকে দিয়ে সবগুলো কাজ করানো হবে। আদর-যত্নের পরিবর্তে তাকে কথা শোনানো হবে অত্যাচার করানো হবে। 

অত্যাচারী একরকম ওই যে বললাম না, টাকাপয়সা থাকে সোনায় সোহাগা। তাই সবাইকে বলব বাবার টাকা পয়সা না দেখে মেয়েকে দেখুন, ব্যবহার দেখো তার চরিত্র দেখুন। তার সাথে এরকম ব্যবহার করুন। এতে করে আপনাদের ফ্যামিলি ভালো থাকবে।
ধন্যবাদ সবাইকে

Post a Comment

Previous Post Next Post